You are currently viewing সাধারণজ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলি পর্ব ০১
বাংলাদেশ বিষয়াবলী

সাধারণজ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলি পর্ব ০১

সাধারণজ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলি

এখানে বাংলাদেশ বিষয়ের উপরে কিছু সংখিপ্ত তথ্য দেওয়া হয়েছে।

১. বাংলাশের সীমান্তবর্তী জেলা- ৩২টি।

২. ভারতের সাথে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী জেলা- ৩০টি।

৩. মিয়ানমারের সাথে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী জেলা- ৩টি।

৪. ভারত মিয়ানমার উভয় দেশের সীমান্ত সংযোগ রয়েছে- রাঙামাটি জেরার সাথে।

৫. বাংলাদেশের রাজনৈতিক সমুদ্রসীমা – ১২ নটিক্যাল মাইল (১ নটিক্যার মাইল সমান ১.৮৫৩ কি.মি.)।

৬. ভারতের সাথে বাংলাদেশের সীমান্ত সংযোগ নেই – ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের।

৭. ভারতের সাথে বাংলাদেশের মীমান্ত রয়েছে- ৫টি রাজ্যের। যথা- পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরা ও মিজোরাম।

৮. বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী ভারতের জেলা- ১৫টি।

৯. জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বে- ৮ম।

১০. জনসংখ্যায় এশিয়াায় বাংলাদেশের অবস্থান- ৫ম।

১১. জনসংখ্যায় মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান- চতুর্থ।

১২. বাংলাদেশে প্রথম আদমশুমারি অনুষ্ঠিত হয়- ১৯৭৪ সালে।

১৩. বাংলায় প্রথম ১০ বছর ভিত্তিক আদমশুমারি ‍অনুষ্ঠিত হয়- ১৮৭২ সালে।

১৪. পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিবাসিদের প্রধান উৎসব- বৈসাবি।

১৫. পাঙন উপজাতি- মুসলমান।

১৬. বিরিশিরি- ১৯৭১ সালে প্রতিষ্ঠিত হং নেত্রকোনা জেলায় । এটি সোমেশ্বরি নদির তীরে অবস্থিত।

১৭. চিৎমরম বৌদ্ধ বিহার অবস্থিত- কর্ণফুলী নদির তীরে।

১৮. পার্বত্য চট্টগ্রামে- ১১টি উপজাতি বাস করে।

১৯. বাংলাদেশে সবচেয়ে শিক্ষিত জাতি- চাকমা।

২০. মণিপুরী নৃত্য- সিলেট অঞ্চলে।

২১. হুদুমা নাচ প্রচলিত- রাজবংশী উপজাতিদের মধ্যে।

২২. বাংলাদেশে বাস করে না- মাওিরি, মুর(মুসলিম উপজাতি), জুলু, নিগ্রো, দ্রাবিড়, নাগা, পিগমী, কুলু, কুর্দি, আফ্রিদি, টোডা, শেরপা প্রভৃতি উপজাতি।

২৩. বণিক দের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছিলেন- জোয়ান বক্র খাঁ।

২৪. উপজাতিদের নিয়ে সর্বাধিক বই লিখেন- আব্দুর সাত্তার; অরণ্য জনপদে ও অরণ্য সংস্কৃতি।

২৫. সাওতালদের বিদ্রোহ সংঘঠিত হয়- ১৮৫৫-৫৬ সালে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ভগনদিহি গ্রামে সাওতাল বীর সিধু-কানুর নেতৃত্ব।

২৬. শান্তিবাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা- মানবেন্দ্র লারমা।

২৭. শান্তিবাহিনীর বর্তমান সভাপতি- জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা।

২৮. দেশের একমাত্র উপজাতি খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা- ই্উ কে চিং মারমা। বীর বিক্রম উপাধিতে ভূষিত।

২৯. চাকমা উপজাতি বাংলাদেশের- সবচেয়ে বড় উপজাতি।

৩০.চাকমারা নৃ-তাত্ত্বিকভাবে- মঙ্গোলিয়।

৩১. চাকমাদের আদিপিতা- বিজয়গিরি।

৩২. চাকমা সমাজ- পিতৃতান্ত্রিক।

৩৩. আদামের প্রধানের নাম- কারবারী

৩৪. চাকমা জনগোষ্ঠী গ্রামকে- মৌজা বলে।

৩৫. চাকমাদের মৌজার প্রধানকে- হেডম্যান বলা হয়।

৩৬. চাকমাদের মৌজার চেয়ে- বৃহৎ সংগঠন গলো চাকমা সার্কেল।

৩৭. চাকমা সার্কেলের প্রধান হলেন- চাকমা রাজা।

৩৮. চাকমা জনগোষ্ঠী জীবিকা নির্বাহ করে- জুম চাষ করে।

৩৯. চাকমাদের ঐতিহ্যবাহি খাদ্য হলো- বাশেঁর রান্না

৪০. সবচেয়ে মাহাত্ম্যপুর্ন উৎসব হল- বুদ্ধ পূর্নিমা ও ফাল্গুনি পূর্নিমা।

৪১. চাকমারা তিন দিন ব্যাপী- বিজুউৎসব পালন করে।

৪২. বিজুউৎৎসবের পর্ব- ৩টি। যথা- ফুরবিঝু, মুলবিঝূ এবং নুওবসর বা গোজ্যাপোজ্যা দিন।

৪৩. কঠিন চীবর দান হলো- চাকমা দের উৎসব।

৪৪. চাকমাদের নিজস্ব ভাষা- চাকমাম বা চাঙমা নামে পরিচিত।

৪৫. চাকমারা প্রধানত- বৌদ্ধধর্মে বিশ্বাসী।

৪৬. বৌদ্ধ মন্দির গুলো কে বলা হয়- ক্যাং।

৪৭. বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম উপজাতি গোষ্ঠী- সাওতাল।

৪৮. সাঁওতালরা নিজেদের- হোড় বলে। হোড় অর্থ মানুষ।

৪৯. নৃগোষ্ঠী গত ভাবে সাঁওতালরা- আদি অস্ট্রেলিয়।

৫০. সাঁওতাল সমাজের মূল ভিত্তি কী- গ্রাম পঞ্চায়েত।

৫১. সাঁওতালদের গ্রাম প্রধান হলেন- মাঝি বা মানিযহি।

৫২. সাঁওতাল দের পরিচয়- পিতৃসূত্রীয়।

৫৩. সাঁওতালরা চাল থেকে- হাড়িয়া নামক একটি পানীয় তৈরি কর।

৫৪. সাঁওতালদের সবচেয়ে বড় ঐতিহ্যবাহী  উৎসব- সোহরায়।

৫৫. সাঁওতালরা- সাঁওতালি. বাংলা ও সাদরি ভাষায় কথা বলে।

৫৬. গারেোরা নিজেদেরকে- পাহাড়ের মানুষ বা মান্দি বা আচিক-মান্দি মনে হয়।

৫৭. গারোরা নৃগোষ্ঠীগতভাবে- মঙ্গোলয়েড। ‍ূ

৫৮. গারো সম্প্রদায় মেন বলে- মাটি কে।

৫৯. গারো দের ঐতিহ্যবাহি খাদ্যের নাম কী- খাড়ি।

৬০. গারো দের সবচেয়ে বড় উৎসব- ওয়ানগালা।

৬১. গারো দের বা মান্দি দের আদি ধর্মের নাম- সাংসারেক।

৬২. গারোদের প্রধান দেবতার নাম- তাতারা রাবুগা।

৬৩. গারোদের নিজেদের ভাষা কে বলা হয়- আচিক কুসিক অর্থাৎ পাহাড়ি ভাষা।

৬৪. গারো নারীদের ‌ঐতিহ্যবাহী পোষাক- দকমান্দা ও দকাশারি।

৬৫. মান্দি পুরুষদের ঐতিহ্যবাহী পোষাক- গান্দো।

৬৬. বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় নাম- গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ

৬৭. বাংলাদেশের জাতীয় প্রতীক- উভয় পাশে ধানের শীষ বেষ্টিত পানিতে ভাসমান জাতীয় ফুল শাপলা। তার শির্ষে পাট গাছের পরস্পর সংযুক্ত তিনটি পাতা এবং উভয় পাশে দুইটি করে তারকা (সংবিধানে৪(৩)

৬৮. বাংলাদেশের মোট আয়তন – ১,৪৭,৫৭০ বর্গ কিলোমিটার বা ৫৬,৯৭৭ বর্গ মাইল ।

৬৯. বাংলাদেশের ভৌগলিক সীমানা – উত্তরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, মেঘালয় ও আসাম, পূর্বে আসাম, ত্রিপুরা ও মিজোরাম এবং মিযানমার, পশ্চিমে ভারতের পশ্চমবঙ্গ ও দক্ষিণে বঙ্গপসাগর ।

৭০. বাংরাদেশের মোটসিীমান্ত র্দৈঘ – ৫,১৩৮ কিলেমিটার ( ভূমি মন্ত্রণালয় রির্পোট) এবং ৪,৭১৯ কিলোমিটার ( মাধ্যমিক বই)

৭১. বাংলাদেশের মোট স্থলসীমা – ৪,৪২৭ কিলোমিটার

৭২. বাংলাদেশের সমুদ্র উপকুলের দৈর্ঘ্ – ৭১১ কিলোমিটার ( মাধ্যমিক ভূগোল বই অনুসারে)

৭৩. বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যা – ১৬ কোটি ৮২ লাখ ।

৭৪. বাংলাদেশের জনসংখ্যার ঘনত্ব – ১১৪০ জন ( বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমীক্ষা ২০২১ অনুযায়ী০

৭৫.বাংলাদেশের পুরুষ ও নারীর অনুপাত – ১০০. ২:১০০

৭৬. বাংলাদেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার – ১.৩৭%

৭৭. বাংলাদেশে বিভাগ সংখ্যা – ৮ টি

৭৮. বাংলাদেশের জনগনের মাথাপিছু বার্ষিক আয় – ২৫৬১ মার্কিন ডলার ।

৭৯. বাংলাদেশে বিরাজমান – ক্রান্তিয় মৌমুমি জলবায়ু

৮০. আয়তনের দিক থেকে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান – ৯৪ তম

৮১. কর্কটক্রান্তি রেখার অপর নাম কী – ট্রপিক অব ক্যান্সার বা ২৩.৫ উত্তর অক্ষরেখা ।

৮২. গ্রিনিচ থেকে বাংলাদেশের অবস্থান – ৯০ পূর্ব দ্রাঘিমা।

৮৩. মায়ানমারের সাথে বাংলাদেশের মোট সমিান্ত দৈর্ঘ্য – ২৭১ কিলেমিটার

৮৪. বাংলাদেশের সাথে সীমান্ত সংযোগ রয়েছে – ভারত ও মিয়ানমার দুটি দেশের

৮৫. নৃ-তাত্ত্বিক বিচারে খাসিয়ারা – মঙ্গোলীয় জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।

৮৬. খাসিয়াদের পরিবার – মাতৃসূত্রীয়।

৮৭. গ্রামকে খাসিয়া ভাষায় বলা হয় – পুঞ্জি।

৮৮. খাসিয়ারা পছন্দ করে – পান ও কাঁচা সুপারি।

৮৯. খাসিয়াদের ভাষা হলো – খাসিয়া ভাষা।

৯০. নৃ-তাত্ত্বিক বিচারে মারমা উপজাতিরা – মঙ্গোলীয় জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।

৯১. মারমা সমাজ – পিতৃতান্ত্রিক।

৯২. মারামাদের সমাজে প্রধান – রাজা।

৯৩. মারমারা – বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী।

৯৪. মারমারা গ্রামকে বলে – রোয়া।

৯৫. মারমাদের গ্রাম প্রধানকে বলে – রোয়াজ।

৯৬. মারমাদের সবচেয়ে বড় জলোৎসব – সাংগ্রাই।

৯৭. মারমাদের ধর্মগ্রন্থের নাম – থাদুত্তুয়াং।

৯৮. মারমাদের ভাষা – মগী।

৯৯. মারমাদের জলোৎসব অনুষ্ঠানের সময় – এপ্রিল মাস।

 

সাধারণজ্ঞান সম্পর্কিত আরো তথ্য পেতে TimetoEdu এর সাথেই থাকুন।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest

0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments