You are currently viewing ব্রয়লার মুরগির ১ থেকে ৩৫ দিনের ঔষধ তালিকা
ব্রয়লার মুরগির ১ থেকে ৩৫ দিনের ঔষধ তালিকা

ব্রয়লার মুরগির ১ থেকে ৩৫ দিনের ঔষধ তালিকা

ব্রয়লার মুরগি ১ থেকে ৩৫ দিনের ওষুধ তালিকা

ব্রয়লার মুরগি ১ থেকে ৩৫ দিনের মধ্যে বিক্রির উপযোগী হয়ে যায় ।আপনারা যারা মুরগি পালন করেন অথবা বয়লার মুরগি পালন করবেন ভাবছেন তারা অবশ্যই বয়লার মুরগির ওষুধ তালিকা সম্পর্কে জেনে নিবেন। আপনি যদি কোন কাজ করতে যান যদি সেই বিষয়ে ভালো অভিজ্ঞ না হন তাহলে সেই বিষয়ে কোনদিনই সফল হতে পারবেন না। যারা বয়লার মুরগী পালন করতে যাচ্ছেন তারা বয়লার মুরগী এক থেকে ৩৫ দিনের ঔষধ তালিকা জেনে নিন। বল মুরগি সাধারণত ৩৫ থেকে ৪০ দিনের মধ্যে বিক্রির জন্য প্রস্তুত হয়ে যায়। আর এই ৩৫ থেকে ৪০ দিন যদি আপনি বয়লার মুরগিকে প্রয়োজনীয় ঔষধ এবং সময় দিতে পারেন তাহলে আশা করা যায় এক হাজার বলেন মুরগি থেকে আপনি ২০ হাজারের উপর টাকা লাভ করতে পারবেন। বয়লার মুরগি ওষুধ সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া আপনাদের সবার উচিত। আজকে যে বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হবে।

১. বয়লার মুরগিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার নিয়ম!
২. ব্রয়লার মুরগির ভ্যাকসিন দেওয়ার আগে ও পরে করনীয়!
৩. বয়লার মুরগিতে প্রথম তিন দিনের ওষুধ প্রণালী!
৪. ব্রয়লার মুরগির চার থেকে সাত দিনের ওষুধ প্রণালী!
৫. ব্রয়লার মুরগির আট থেকে দশ দিনের ঔষধ প্রণালী!
৬. ব্রয়লার মুরগিতে ১১ থেকে ১৫ দিনের ওষুধ প্রণালী!
৭. ব্রয়লার মুরগী ষোল ও ১৭ দিনের ঔষধ প্রণালী!
৮. ব্রয়লার মুরগির ১৮ থেকে ২১ দিনের প্রয়োজনীয় ঔষধ!
৯. ব্রয়লার মুরগির ২২ থেকে ২৫ দিনে ব্যবহৃত ওষুধ।
১০. ব্রয়লার মুরগিতে ব্যবহৃত ২৬ থেকে ৩০ দিনে ব্যবহৃত ওষুধ।
১১. ব্রয়লার মুরগিতে ব্যবহৃত ৩১ থেকে ৩৫ দিনে ব্যবহৃত ঔষধ!

উপরোক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে আজকের এ ব্লগে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হবে। এখন আপনাদের মাঝে প্রশ্ন আসতে পারে দিন ভাগ করে দেওয়া কেন ভাইয়া। দিন ভাগ করে দেওয়ার কারণ একটাই আলাদা আলাদা ওষুধের ব্যবহার। কারণ ব্রয়লার মুরগিতে প্রচুর পরিমাণে আলাদা আলাদা ওষুধ ব্যবহার করতে হয়। আজকে যে ডেটা গুলো আপনাদের মাঝে বিস্তারিতভাবে শেয়ার করব সেই গুলো মেইনটেইন করলে আশা করা যায় 35 দিনে আপনার বয়লার মুরগির গড় ওজন আসবে ২ কেজি ১০০ সর্বনিম্ন।

১. ব্রয়লার মুরগিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার নিয়ম!

অনেকের মাথায় প্রশ্ন আসে যে বয়লার মুরগিতে কিভাবে ভ্যাকসিন দিতে হয় ভ্যাকসিন দেওয়ার নিয়ম কি কয়বার ভ্যাকসিন দিতে হয় ইত্যাদি ইত্যাদি। ভ্যাক্সিন সাধারণত দুটি নিয়মে দেওয়া হয়ে থাকে। এ হচ্ছে পানিতে এবং এক হচ্ছে চোখে। বিভিন্ন গবেষণা প্রমাণিত হয়েছে যে বয়লার মুরগি পানিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার তুলনে চোখে ভ্যাকসিন দেওয়া অধিক পরিমাণে উপকৃত এবং লাভবান জনক। বয়লার মুরগিতে সাধারণত চারবার ভ্যাকসিন করা হয়। এই ভ্যাকসিনগুলো অনেকেই আছে যারা পানিতে মিশিয়ে খাইয়ে দেয় এবং অনেকে আছে যারা চোখে ড্রপ আকারে দেয়। ব্রয়লার মুরগিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার আসল নিয়ম হচ্ছে চোখে ভ্যাকসিন দেওয়া। কারণ চোখে ভ্যাকসিন দিলে ১০০% সিউরিটি হওয়া যায় যে বিভিন্ন ধরনের রোগ আসবে না। অবশ্যই মনে রাখতে হবে বয়লার মুরগি শুধু চোখে ভ্যাকসিন করতে হবে। যাদের চোখে ভ্যাকসিন করতে বিরক্ত বোধ হয় তারা প্রথম দুইটা চোখে এবং লাস্টের দুইটা পানিতে মিশিয়ে খাওয়াতে পারেন।

২. ব্রয়লার মুরগিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার আগে ও পরে করণীয়!

বয়লার মুরগিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার আগে ও পরে বিভিন্ন ধরনের করণীয় থাকে। বয়লার মুরগিতে ভ্যাকসিন দেওয়া ছয় ঘন্টা আগে আপনাকে পানিতে এডিথ্রি ঔষধ ব্যবহার করতে হবে। এডিথ্রি মূলত একটি ভিটামিন জাতীয় ঔষধ। এটি বয়লারের যেমন গ্রোথ বৃদ্ধি করে তেমন ইমিউনিটি বাড়ায়। ভ্যাকসিন দেওয়া ছয় ঘন্টা আগে অবশ্যই ভিটামিন জাতীয় যেকোনো ওষুধ ব্যবহার করতে হবে। তারপর ভ্যাকসিন করতে হবে। ভ্যাকসিন করার পরে সঙ্গে সঙ্গে পানিতে নাপা বা প্যারাসিটামল জাতীয় ঔষধ বা সিরাপ ব্যবহার করতে হবে। অবশ্যই প্যারাসিটামল জাতীয় ঔষধ এর সাথে ভিটামিন এ ডি ব্যবহার করতে হবে। পরবর্তী ছয় ঘন্টা প্যারাসিটামল প্লাস ভিটামিন এরিতে চালাবেন। ভিটামিন এডিথ্রি অবশ্যই ছোট মুরগির ক্ষেত্রে এক এক মিলি ৩ লিটার পানিতে ব্যবহার করবেন। আশা করি ভ্যাকসিন দেওয়ার আগেও পরে করনীয় সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন।

৩. ব্রয়লার মুরগিতে প্রথম তিন দিনের ঔষধ প্রণালী!

বয়লার পালনের সব থেকে যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেটি হচ্ছে ঔষধ প্রণালী। আপনি যদি সঠিক নিয়মে ওষুধ ব্যবহার এবং কোন ওষুধ কোন সময় দিতে হবে সে সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে না জানেন তাহলে কোনদিনই বয়লার মুরগির ওজন বৃদ্ধি করতে পারবেন না। বয়লার মুরগিতে প্রথম তিন দিনে ওষুধ প্রণালী হল, আপনি বোর্ডিংয়ে বাচ্চা পাওয়ার পরে আপনাকে প্রথম তিন ঘন্টা সাদা পানি অথবা লাইসোভেট ব্যবহার করতে হবে। তার পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা একটানা আপনাকে এন্টিবেটিক জাতীয় বিভিন্ন ধরনের ঔষধ যেমন নিউ মাইসিন অথবা এন্ডোফ্লক্সিন ব্যবহার করতে হবে। ব্রয়লার মুরগির বাচ্চা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনাকে এন্টিবায়োটিক জাতীয় কোন ঔষধ ব্যবহার করা যাবে না। কারণ বাচ্চার অতিরিক্ত পরিমাণে ক্ষতি হয়ে যাবে। তাই প্রথম তিন ঘন্টা অথবা চার ঘন্টা স্যালাইন জাতীয় পানি অথবা লাইসোফেট জাতীয় পানি ব্যবহার করে পরবর্তী ৭২ ঘন্টা অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করতে হবে।

৪. ব্রয়লার মুরগিতে চার থেকে সাত দিনের ঔষধ প্রণালী!

অনেকেই নিশ্চয়ই চিন্তিত থাকেন যে বয়লার মুরগিতে প্রথম চার থেকে সাত দিনে কি কি ঔষধ ব্যবহার করব। চার থেকে সাত দিনে ব্যবহৃত ওষুধগুলোর মধ্যে । চতুর্থ দিন আপনি ২৪ ঘন্টা থায়ামিন প্লাস বা বি 1 বি টু জাতীয় ভিটামিন ব্যবহার করতে পারেন। পঞ্চম দিনে ভিটামিন এ ডি থ্রি প্লাস ভ্যাকসিন চলবে। সকালে ভিটামিন এডি থ্রি দিবেন দুপুরে সাদা পানি এবং রাতে ভ্যাকসিন করে আবার এডি 3 দিবেন। তারপরে ষষ্ঠ এবং সপ্তম দিন আপনাকে ক্যালসিয়াম জাতীয় ওষুধ ব্যবহার করতে হবে।  ক্যালসিয়াম আপনি দুপুরে ব্যবহার করবেন। সকালে সাদা পানি ব্যবহার করবেন দুপুরে ক্যালসিয়াম জাতীয় ওষুধ এবং রাত্রে অটেট্রা ব্যবহার করতে হবে। দুইদিন এই ওষুধগুলি ব্যবহার করবেন।

৫. বয়লার মুরগির আট ও দশ দিনের ব্যবহৃত ওষুধ.

বয়লার মুরগিতে ৮ ও ১০ দিনে যে সকল ওষুধ গুলো ব্যবহার করতে হবে সেগুলো হল, লিভার টনিক , জিংক, এডিথ্রি ও ভ্যাকসিন। অষ্টম ও নবম দিন সকালে সাদা পানি অথবা লিভার টনিক দুপুরে জিঙ্ক এবং রাত্রে ও টেট্রাভেট ব্যবহার করতে পারেন। এবং দশম দিন সকালে সাদা পানি দুপুরে এডি থি এবং রাতে ভ্যাকসিন করে পুনরায় এডি থি ব্যবহার করতে পারেন। অষ্টম এবং নবম দিনে অবশ্যই আপনাকে লিভার টনিক জিংক এবং ওটার ট্রাভেট ব্যবহার করতে হবে। জিম হচ্ছে এমন এক ধরনের ওষুধ যা মুরগি পা মোটা করতে সাহায্য করে। তাই দুপুরে অথবা সকালে জিঙ্ক ব্যবহার করতে পারেন।

৬. ব্রয়লার মুরগিতে ১১ থেকে ১৫ দিনের ওষুধ প্রণালী  !

ব্রয়লার মুরগিতে ১১ থেকে ১৫ দিনের ওষুধ আমাদের মধ্যে যে ওষুধগুলো রয়েছে সে ওষুধগুলো হল আমার সাথে জাতীয় ঔষধ। একটানা ৭২ ঘন্টা মানে তিন দিন আপনি আমার সাথে জাতীয় ঔষধ অথবা এমোডিস ব্যবহার করতে পারেন। তাছাড়া রেনমক্স ভেট রেনামাইসিন পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। তারপর ১৫ দিন বয়সের দিন আপনি সকালে সাদা পানি দুপুরে তুঁতে বা কপার সালফেট ব্যবহার করতে পারেন। আবার রাত্রে সাদা পানি ব্যবহার করতে পারেন।

৭. বয়লার মুরগিতে ব্যবহৃত ষোল ও ১৭ দিনের ঔষধ।

১৬ ও ১৭ দিনে যে সকল ঔষধ গুলো ব্যবহার করবেন সেই ওষুধগুলো প্রায় ব্যবহৃত ঔষধ। ১৬ তম দিন সকালে সাদা পানি দুপুরে ভিটামিন জাতীয় অথবা ক্যালসিয়াম জাতীয় ওষুধ এবং রাত্রে ব্যবহার করতে পারেন। ঠিক ১৭ তম দিন ভ্যাকসিন করা ছয় ঘন্টা আগে এডি থি ব্যবহার করে পরবর্তী ছয় ঘন্টা পুনরায় ভিটামিন ডি থ্রি ব্যবহার করুন। ১৬-১৭ তম দিনে সাধারণত গাম্বুরা ভ্যাকসিন করা হয়। তাই ভ্যাকসিন এর আগে অবশ্যই ভিটামিন জাতীয় ঔষধ ব্যবহার করুন।

৮. ১৮ থেকে ২১ দিনে ব্যবহৃত ওষুধ.!

১৮ থেকে ও ২১ দিনে যে সকল ওষুধ ব্যবহার করবেন সেই ওষুধগুলো হল সকালে লিভার টনিক দুপুরে জিংক এবং রাত্রে সাদা পানি ব্যবহার করতে পারেন। আপনার ইচ্ছা হলে সাদা পানির পরিবর্তে রাত্রে otetra ভেট ব্যবহার করতে পারেন। ১৭ থেকে ২১ দিন পর্যন্ত সময় বয়লার মুরগির রোগ সংক্রমণের একটি সময়। এই সময় প্রয়োজনীয় ওষুধ ব্যবহার না করলে বয়লার মুরগিতে বিভিন্ন ধরনের রোগের আক্রমণ হয়। তাই অযথা অন্য কোন ওষুধ ব্যবহার না করাই আপনাদের পক্ষে উত্তম।

৯. ব্রয়লার মুরগিতে ২২ থেকে ২৫ দিন ব্যবহৃত ওষুধ!

২২ থেকে ২৫ দিনে যে সকল ঔষধ গুলো ব্যবহার করবে সে ওষুধগুলোর তালিকায় রয়েছে সেগুলি হল টকসল এবং ডিভেট। সকালে পানিতে একটানা 3 দিন টকশাল এবং রাত্রে পানিতে একটানা 3 দিন ডিভেটট ব্যবহার করবেন। এবং দুপুরে মাঝে মাঝে তুতে ব্যবহার করতে পারেন।

১০. ২৬ থেকে ৩০ দিন সময় ব্যবহৃত ওষুধ।

২৬ থেকে ৩০ দিন বয়সে প্রতিদিন সকালে পিএইচ দুপুরে ভিটামিন সি এবং রাত্রে ভিটামিন এ ডি থ্রি ব্যবহার করবেন। অতিরিক্ত গরমের সময় ভিটামিন সি জাতীয় ঔষধ ব্যবহার করা প্রয়োজনীয়। তাছাড়া মাঝে মাঝে কুশুরের গুড় অথবা লেবু পানি ব্যবহার করতে পারেন। এগুলা ব্যবহারের কারণ হচ্ছে মুরগিতে স্ট্রোকের পরিমাণ কমে থাকে। ২৬ থেকে ৩০ দিন বয়সে এই ওষুধগুলো ব্যবহার করলে মোটামুটি ভাবে আপনার আর তেমনভাবে কিছু প্রয়োজন হবে না।

১১. ৩১ থেকে ৩৫ দিন ব্যবহৃত ঔষধ!

৩১ থেকে ৩৫ দিন বয়সে আপনি প্রতিদিন সকালে সাদা পানি এবং দুপুরে প্যারাসিটামল জাতীয় ঔষধ এবং রাত্রে সিপ্রোফ্লক্সিন প্লাস আমাশার ঔষধ ব্যবহার করতে পারেন। ৩১ থেকে ৩৫ দিন বয়সে ওষুধগুলো ব্যবহার করলে আপনার মুরগির নতুন করে কোন রোগ সংক্রমণ করবে না এবং বৃদ্ধি বজায় থাকবে।

আশা করা যায় উপরোক্ত ওষুধ তালিকা গুলা নিয়মিত ব্যবহার করলে আপনি ব্রয়লার মুরগিতে সাফল্য আনতে পারবেন। এমন আরো বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং টেক রিলেটেড এবং বিজনেস আইডিয়া এবং বিজনেস টিপস পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

5 1 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest

2 Comments
Oldest
Newest Most Voted
Inline Feedbacks
View all comments
মৃণাল
মৃণাল
11 months ago

কোন সিদ্ধান্তটাই পরিপূর্ণ দেয়া নাই ঔষধের মাত্রা কি পরিমান দিতে সেগুলো নাই এই ধরনের সেবা দেয়া না দেয়া ভালো।